প্রাথমিক বিদ্যালয়

চান্দিনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকের বিরুদ্ধে গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন

চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :
কুমিল্লার চান্দিনায় অনুমতি ছাড়াই বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগ উঠেছে উপজেলার ভোমরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ এক সহকারি শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, উপজেলার ভোমরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সীমানায় লাগানো দুইটি একাশি ও একটি বেলজিয়াম করচ গাছ কেটে স্থানীয় গাছ ব্যবসায়ী মাসুম বিল্লাহর কাছে বিক্রি করে দেয় ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহজাহান মিয়া ও সহকারি শিক্ষক মো. হান্নান। যার বাজার মূল্য প্রায় আড়াই হাজার টাকা। কোনরকম নিয়মনীতি না মেনে সরকারি বিদ্যালয়ের গাছ কেটে বিক্রির এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. মোস্তফা কামাল জানান, সরকার গাছ উপহার দিয়েছে। সে গাছ গুলো আমি নিজের হাতে লাগিয়েছি, পরিচর্যাও করেছি। এখন বড় হয়েছে। এগুলো বিদ্যালয়ের সীমানায় পড়ায় ৮/১০ দিনআগে স্কুলের শিক্ষকরা গাছগুলো বিক্রি করে দিয়েছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.শাহজাহান বলেন, ‘গাছগুলো বিদ্যালয়ের ছাদের উপরে ছিলো। গাছের পাতা ও পানি পড়ে ছাদ নষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। তাই সহকারি শিক্ষক মো. হান্নান গাছ গুলো বিক্রি করে দিয়েছে।’

জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন- ‘কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে গাছকাটার লিখিত কিংবা মৌখিক অনুমতি কেউ নেননি বা দেওয়া হয় নি। বিষয়টি আমরা শুনেছি। ইতোমধ্যে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্তটিম গঠন করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আশরাফুন নাহার বলেন, ‘ওই বিদ্যালয়ের গাছ কাটার কোন অনুমতি স্কুল কর্তপক্ষকে দেওয়া হয়নি। শিগগিরই এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ ঘটনায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. আব্দুল মান্নান জানান, আমি ঘটনাটি শুনেছি। বিষয়টি তদন্ত করার জন্য আমি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশনা দিয়েছি। তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

30 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন