rape chandpur report

তিনজনকে ধর্ষণ ও ধর্ষণচেষ্টা

লক্ষ্মীপুরে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেপ্তার ২

নিউজ ডেস্ক : রাজশাহীতে এক স্কুলছাত্রী ও টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে এক নারীকে ধর্ষণ এবং নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। লক্ষ্মীপুরে ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে (২৪) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রাজশাহীতে মঙ্গলবার সকালের ঘটনায় গতকাল বুধবার ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর (১৫) বাবা নগরের চন্দ্রিমা থানায় একটি মামলা করেছেন। অভিযুক্ত আকাশ (২৩) নগরের দড়িখড়বোনা এলাকায় থাকেন এবং একটি ব্যায়ামাগারের প্রশিক্ষক। তিনি গাঢাকা দিয়েছেন। মামলার বরাতে চন্দ্রিমা থানার ওসি এমরান হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকালে মা-বাবা বাইরে থাকায় ছাত্রীটি বাড়িতে একাই ছিল। এ সময় বাড়ি ফাঁকা পেয়ে আকাশ সেখানে গিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন।

আরো পড়ুন : জেনে নিন যৌন রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার

ধনবাড়ীর ঘটনায় ভুক্তভোগী (২৬) থানায় অভিযোগ করেছেন। তাঁর বাড়ি উপজেলার ধোপাখালী ইউনিয়নে। অভিযুক্ত সেলিম মিয়া (৩৫) একই ইউনিয়নের ধোপাখালী গ্রামের ছলিম উদ্দিন ওরফে সুমোর ছেলে। ভুক্তভোগী জানান, কয়েক বছর আগে স্বামীর সঙ্গে তাঁর বিচ্ছেদ হয়।

আরো পড়ুন : মেহ প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের কার্যকরী সমাধানসমূহ

এর পর থেকে তিনি সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়িতে থাকেন। এক পর্যায়ে আত্মীয় সেলিমের সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক হয়। সেলিম তাঁকে বিভিন্ন জায়গায় বেড়াতে নিয়ে যান। একদিন সেলিম তাঁকে ধর্ষণ করে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেন। পরে তাঁদের মধ্যে স্বামী-স্ত্রীর মতো সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেলিমকে বিয়ের কথা বললে তিনি টালবাহানা করতে থাকেন। সর্বশেষ গত রবিবার ভুক্তভোগীর বাড়িতে গিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করেন এক সন্তানের বাবা সেলিম। এখন ভুক্তভোগী তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনা কাউকে বললে ভুক্তভোগীকে এলাকার প্রভাবশালী লোকজন দিয়ে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন সেলিম।

কলমাকান্দা উপজেলায় গত ২০ আগস্ট রাতে তৃতীয় শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। গত সোমবার রাতে ছাত্রীর নানি কলমাকান্দা থানায় মামলাটি করেন।

আরো পড়ুন : শ্বেতির সাদা দাগ দূর করার সহজ কিছু উপায়

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার হাজিরপাড়া ইউনিয়নের উত্তর চন্দ্রপুর গ্রাম ও হরিহর চক্র গ্রাম থেকে মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তার দুজন হলেন মোরশেদ আলম সোহেল ও মো. সোহেল। গতকাল দুপুরে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে তাঁদের জেলা কারাগারে ও ভুক্তভোগীকে সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠায় পুলিশ।

(প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী এবং প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর, মধুপুর ও কলমাকান্দা)

58 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন