শতবর্ষী ডাকঘর

ফরিদগঞ্জে শতবর্ষী ডাকঘরের জরাজীর্ণ দশা, নেই নিজস্ব ভবন

ফরিদগঞ্জ সংবাদদাতা :
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদরে অবস্থিত ডাকঘরটি নানা সমস্যায় জর্জরিত। পর পর ৫ বার ভূমি অধিগ্রহণ করা সত্ত্বেও অজ্ঞাত কারণে নিজস্ব ভবন নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি।

তথ্য সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে শতবর্ষের পুরনো এ ডাকঘরটি উপজেলা পরিষদের পরিত্যক্ত একটি গোডাউনে ভাড়ায় কার্যক্রম চালছে। এদিকে চরম জনবল সংকটে দৈনন্দিন কার্যক্রম চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে সংশ্লিষ্টদের । অনুমোদিত পদ সংখ্যা ১১টি । লোকবল রয়েছে ৩ টিতে বাকি ০৯ টি পদ শূন্য রয়েছে।

শূন্য পদগুলো হচ্ছে, পোস্টাল অপারেটর ৩টি,পোস্ট ম্যান ৩টি, পেকার ১টি , রানার ১টি, সহ-পরিদর্শক ১টি। ভবনটি চরম ঝুঁকিপূর্ণ। পোস্ট ই- সেন্টারের কার্যক্রম চলাকালীন এক প্রশিক্ষণার্থীর মাথায় ছাদের পলেস্তরা খসে পড়ে গুরুতর আহত হওয়ার কথা জানিয়েছেন পোস্ট মাস্টার।

প্রতিনিয়ত পলেস্তরা খসে কখনও স্টাফদের মাথায় আবার কখনও খাতায় পড়ছে। দেয়ালগুলোতেও ফাঁটল দেখা দিয়েছে। যেকোন সময় ছাদ ধবসে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশংকা করছে সংশ্লিষ্টরা। আসবাবপত্র নেই বললেই চলে। অল্প সংখ্যক আসবাবপত্র তাও জীর্ণদশা। কাউন্টার সুবিধা নেই। শৌচাগারের ব্যবস্থা নেই।

উপজেলা পোস্ট মাস্টার মোঃ মিজানুর রহমান প্রিয় সময়কে জানান, আমাদের কাজের পরিধি বাড়লেও জনবল সংকট কাটেনি। প্রতিনিয়ত কার্যক্রম সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। পোষ্ট অফিসের কার্জ সঞ্চয় ব্যাংকিং, সঞ্চয়পত্র, ডাকজীবন বীমা, মনি অর্ডার, ইলেকট্রনিক মনি অর্ডার, পোস্টাল অর্ডার, পরীক্ষার খাতা, ভিপিএল, ভিপিপি ইত্যাদি। জনবল সংকট বিষয়ে জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট লোকবল সংকট বিষয়ে একাধিকবার লিখিতভাবে অবহিত করা হলেও কোন লাভ হয়নি।

আরো পড়ুন : শ্বেতীর সাদা দাগ দূর করার উপায়

আরো পড়ুন : মেহ প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের কার্যকরী সমাধানসমূহ

আরো পড়ুন : পাইলস রোগে করণীয়

আরো পড়ুন : জেনে নিন দীর্ঘক্ষণ মিলনের ঔষধ

আরো পড়ুন : একজিমা হলে কী করবেন?

 18 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন