chandpurreport 345

ফরিদগঞ্জে পিতার বিরুদ্ধে বিদেশ ফেরৎ `মৃত সন্তানে’র সংবাদ সম্মেলন!

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে পিতার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করলো বিদেশ ফেরৎ মৃত সন্তান! সেই মৃত সন্তানের মামলায়ই বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন পিতা। পিতার বিরুদ্ধে কেন মামলা দায়ের করতে বাধ্য হলো সন্তান, সেই ব্যাখ্যা দিতেই শনিবার (২০ নভেম্বর) সকাল ১১টায় ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলণ করেছে ছেলে প্রবাসী এমরান হোসেন জহির (ঝুটন)।

লিখিত বক্তব্যে এমরান হোসেন জহির (ঝুটন) জানান, তার পিতা আহাম্মদ উল্যা বেপারীর প্রথম স্ত্রী খুরশিদা বেগমের ছেলে। এই ঘরে তার বোন খাদিজা বেগম লাকি বর্তমানে মৃত। আমার পিতা আমার মাকে তালাক দিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করে। সেই ঘরে সৎ মা ও তিন বোন আছে।

জন্ম থেকে আমি পিতার স্নেহ,ভালবাসা থেকে বঞ্চিত হয়েও জীবিকার টানে প্রবাসে যাওয়ার পর থেকে পিতার সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নিয়ে চলছি। বাবার চিকিৎসা ও সৎ বোনের বিয়ের খরচ ও সংসারের খরচাদি দিয়ে চলছি।

অত্যন্ত দুঃখের বিষয় , আমার বাবা আমাকে মৃত দেখিয়ে ০৮ আগস্ট ২০১০ তারিখে স্থানীয় ১১নং চরদুঃখিয়া পুর্ব ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় থেকে তৎকালিন চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ পাটওয়ারী ও সচিবের স্বাক্ষরে নিজের নামে আমাকে মৃত দেখিয়ে ওয়ারিশ সনদ গ্রহণ করেন। একই তারিখে আমার বোন খাদিজা বেগম লাকির মৃত্যু সনদ দেখিয়ে নিজেকে একক ওয়ারিশি বলে ওয়ারিশ সনদ গ্রহণ নেন। আমি আপনাদের নিকট জীবিত হলেও পিতার কাছে আমি মৃত। জন্মদাতা পিতা হয়ে তিনি কি করে সম্পত্তির লোভে এমন কাজ করতে পারলেন।

এতেই ক্ষ্যান্ত নন, তিনি তার পিতার একমাত্র সন্তান দাবী করে আমার ৫(পাঁচ) ফুফুকে অস্বীকার করে, ২৭ অক্টোবর ২০১০ তারিখে একই ইউনিয়ন পরিষদ থেকে একই চেয়ারম্যানের নিকট থেকে ওয়ারিশ সনদ গ্রহণ করেছেন।

আমি বিদেশ থেকে গত দেড় মাস পুর্বে দেশে ফিরে আসার পর আমার ফুফু কর্তৃক আমাকে দান করা ও আরেক ফুফু থেকে ক্রয়কৃত জমিতে বাড়ি নির্মাণ করতে গেলে বাঁধার সম্মুখিন হই। এক পর্যায়ে এর কারণ জানতে গিয়ে বাবার এসব কু-রুচিপূর্ণ কথা জানতে পারি।

স্থানীয় ভাবে কয়েক দফা শালিশ বৈঠক হলেও কোন সুরাহা না হওয়ায়, আমি বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) চাঁদপুর আদালতে অভিযোগ করি।

আদালতের নির্দেশে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করে বৃহষ্পতিবার রাতেই আমার পিতাকে আটক করে। শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) পুলিশ তাকে আদালতে পাঠালে আদালত আমার বাবাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিতি ছিলিন, ঝুটনের মা খুরশিদা বেগম, স্ত্রী মুক্তা আক্তার, ফুফাতো বোন সরলা বেগম, ফুফাতো ভাই জাহাঙ্গীর আলম, সেলিম পাটওয়ারী, দেলোয়ার হোসেন, সোহেল ঢালী ও সামছুল আরেফিন মুকুল প্রমুখ ।

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ, লক্ষ্মণ ও চিকিৎসা

আরো পড়ুন : মেহ-প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের প্রতিকার

আরো পড়ুন : অর্শ গেজ পাইলস বা ফিস্টুলা রোগের চিকিৎসা

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকারে শক্তিশালী ভেষজ ঔষধ

আরো পড়ুন : যৌন রোগের শতভাগ কার্যকরী ঔষধ

আরো পড়ুন :  নারী-পুরুষের যৌন দুর্বলতা এবং চিকিৎসা

 21 সর্বমোট পড়েছেন,  2 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন