রিপোর্ট 430

‘আমাকে হাইকোর্ট দেখাবেন না’

জেলা প্রতিনিধি, নোয়াখালী : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০৮:২৬ পিএম

নোয়াখালী সদর হাসপাতালে বীর বিক্রম পরিচয় দিয়েও সেবা পেলেন না জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান আবদুল মালেক (৮০)। সেবা না পেয়ে শেষে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য যেতে হয়েছে তাকে। রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর পৌনে ১টার দিকে নোয়াখালীর সদর হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগে এ ঘটনা ঘটে।

বীর বিক্রম আবদুল মালেক নোয়াখালী সদর উপজেলার এজবালিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা।

বীর বিক্রমের ছোট ছেলে মো. আবদুল জলিল বলেন, আমার বাবা বীর বিক্রম। ডাক্তার কিছু পরীক্ষা দিলে ল্যাবরেটরির ইনচার্জ মো. জুয়েলের কাছে যাই। সেখানে বাবার পরিচয় দিলে উনি বলেন আমাকে হাইকোর্ট দেখাবেন না। ১২টার দিকে প্যাথলজি বন্ধ হয়ে গেছে। আজ আর কোনো পরীক্ষা নীরিক্ষা হবে না।

মো. আবদুল জলিল আরো বলেন, পরবর্তীতে আবার আবাসিক মেডিকেল অফিসারের কাছে গেলে তিনি ইমার্জেন্সি লিখে দিলে তারপর উনি নমুনা সংগ্রহ করেন। কিন্তু ফলাফল দেবেন না বলে দিয়েছেন। আগামীকাল ফলাফল পাওয়া যাবে। পরবর্তীতে বাবার শরীরের অবস্থা খারাপ হওয়ায় আমরা ঢাকায় নিয়ে যাচ্ছি।

অভিযোগের বিষয়ে প্যাথলজি বিভাগের ইনচার্জ মো. জুয়েল বলেন, আমাদের নমুনা সংগ্রহের শেষ সময় দুপুর ১২টা পর্যন্ত। উনি ১টার পর নমুনা দিতে এসেছেন। উনার আরেকটা পরীক্ষা থাকায় আমি উনাকে আগামীকাল আসতে বলেছি। পরবর্তীতে দেড়টার দিকে নমুনা সংগ্রহ করেছি। তারপর শুনলাম উনি ঢাকায় চলে গেছেন।

নোয়াখালীর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. হেলাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি ঘটনাটি শুনেছি। আগামীকাল তার বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হবে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হবে।

 21 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন