রিপোর্ট 401

চাঁদপুরে জেলা প্রশাসনকে এডিপিভুক্ত পরিবীক্ষণ আদেশ বাতিলের দাবিতে আইইবি’র মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক : জেলা প্রশাসনকে শতভাগ প্রকল্পের পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়নের দায়িত্ব প্রদান সম্পর্কিত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আদেশ অবিলম্বে বাতিলের দাবীতে আইইবি’র মানববন্ধন চাঁদপুর ষোলঘর আইবি উপকেন্দ্র সম্মুখে ১০ ই ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় তারা প্রেস নোটিশে উল্লেখ করেন বাংলাদেশের প্রকৌশলী সমাজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের কারিগর হিসেবে যােগাযােগ, বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন, আইসিটি,টেলিকমিউনিকেশন, পরিবহন ব্যবস্থা, বন্যা ব্যবস্থাপনা, শিক্ষা প্রকৌশল, গ্রামীণ অবকাঠামাে
উন্নয়ন, জনস্বাস্থ্যসহ সকল সেক্টরে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। কোভিড-১৯ এর অতিমারির মধ্যেও প্রকৌশলীরা রাত দিন পরিশ্রম করে সকল উন্নয়ন কাজ ও জরুরী সেবাসমূহ অব্যাহত রেখেছে।

বিদ্যমান পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন পদ্ধতির আলােকে প্রকৌশলীদের প্রত্যক্ষ সম্পৃক্ততায় পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, পরিমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের মত স্থাপনা বাস্তবায়ন বিশ্বে বাংলাদেশকে মর্যাদার আসনে স্থান দিয়েছে। কিন্তু গত ১৮-২০ জানুয়ারি তারিখে অনুষ্ঠিত ডিসি সম্মেলনে ডিসিগণ কর্তৃক প্রকল্পের পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন নিশ্চিত করা সম্পকির্ত একটি অযৌক্তিক দাবী উত্থাপন করার প্রেক্ষিতে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী তাৎক্ষণিক নাকচ করে দেন। তারপরও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের গত ১৮ জানুয়ারি, ২০২২ এর জারীকৃত পত্রের মাধ্যমে ডিসিগণকে এডিপিভুক্ত শতভাগ প্রকল্প পরিবীক্ষণ ওমূল্যায়নের দায়িত্ব প্রদান সম্পর্কিত আদেশকে দেশের উন্নয়ন বিরােধী ষড়যন্ত্র বলে আইইবি মনে করছে ।

প্রকৌশল দপ্তরের প্রকল্পসমূহ মাঠ পর্যায়ে সাধারণত নির্বাহী প্রকৌশলীগণের নেতৃত্বে বাস্তবায়িত হয়ে থাকে। অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ও তত্ত্বাধায়ক প্রকৌশলীগণ এসব কাজ সরাসরি পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন করে থাকেন।

প্রধানপ্রকৌশলী/সংস্থা প্রধানের দপ্তরে প্রকল্পসমূহ মনিটরিংয়ের জন্য নির্দিষ্ট সেল রয়েছে যেখান থেকে সারাদেশের প্রকল্প বাস্তবায়নের পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন হয়ে থাকে। এছাড়াও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মনিটরিং টীম সরেজমিনে সাইট ভিজিট করে। সংশ্লিষ্ট সচিব মাসিক এডিপি রিভিউ সভা ও মাসিক সমন্বয় সভার মাধ্যমে প্রকল্পসমূহের নিয়মিত পরিবীক্ষণ ওমূল্যায়ন করে থাকে। তদুপরি পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের আইএমইডি বাস্তবায়ন, মনিটরিং ও ইভালুয়েশন বিভাগ নিয়মিত প্রকল্পসমূহের পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন করে থাকে ।

উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজে কারিগরী ও পেশাগত জ্ঞানসম্পন্ন অভিজ্ঞ প্রকৌশলী প্রয়ােজন। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের প্রকৌশল পেশা সংশ্লিষ্ট উন্নয়ন কাজের ধরণ সম্পর্কে কোন কারিগরী ভান ও প্রকল্প বাস্তবায়ন সম্পর্কিত কোন অভিজ্ঞতা নেই। তাই উন্নয়ন কাজে কারিগরি জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা বিহীন জনবল দিয়ে প্রকল্পের পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন করানাে হলে মাঠ পর্যায়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে অনাকাঙ্গিত জটিলতা সৃষ্টি হবে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন রূপকল্প-২০৪১ এর অভিষ্ঠ লক্ষমাত্রা অর্জন ব্যাহত হবে।এছাড়া ও প্রকৌশল কার্যক্রম অপ্রকৌশলীদের দ্বারা তদারকি করা প্রকৌশলীদের জন্য অসম্মানজনক এবং পৃথক একটি দপ্তরের মাধ্যমে প্রকল্প পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন প্রক্রিয়া চালু অপ্রয়ােজনীয় ও অনাকাঙ্খিত।

এ প্রক্রিয়া চালু হলে একদিকে যেমন প্রশাসনিক দ্বৈততদ্বন্দ্বজনিত কারণে অযথা সময়ক্ষেপন হবে অন্যদিকে বিদ্যমান প্রকল্প বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন প্রক্রিয়ায় প্রশাসনিক বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হবে। এতে প্রকল্প বাস্তবায়নে জটিলতা সৃষ্টি হওয়াসহ প্রকল্প বাস্তবায়ন বিলম্বিত হবে যা দেশের অগ্রযাত্রাকে পিছিয়ে দিবে। এ কারণে সকল সংস্থার প্রকৌশলীদেরকে বর্ণিত সূত্রের পত্রের আলােকে চাহিত কোনরূপ তথ্যাদি ডিসিগণকে প্রদান না করার বিষয়ে আইইবি ইতােপূর্বে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। অনতিবিলম্বে প্রজ্ঞাপনটি বাতিল না হলে আইইবির কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী প্রকৌশলীরা কর্মক্ষেত্রে কালো ব্যাজ ধারণ ও কর্মবিরতিসহ কঠোর কর্মসূচিতে যেতে বাধ্য হবেন।

এ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক মোঃ জাকির হোসেন, নির্বাহী প্রকৌশলী অতিরিক্ত দায়িত্ব মোঃ মামুন হাওলাদার, এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ইউনুছ হোসেন বিশ্বাস, শিক্ষা নির্বাহী প্রকৌশলী ফাহিম ইকবাল, সড়ক ও জনপথ নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শামসুদ্দোহা, গণপূর্ত নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রাকিবুর রহমান, চাঁদপুর স্বাস্থ্য নির্বাহী প্রকৌশলী আবু মুসা মোহাম্মদ ফয়সাল প্রমুখ।

 167 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন