রিপোর্ট 493

ফরিদগঞ্জ প্রায় ৪ কোটি টাকা ও স্বর্ণ নিয়ে ব্যবসায়ী উধাও

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ থেকে ক্রেতাদের প্রায় ৪ কোটি টাকা ও স্বর্ণ নিয়ে ব্যবসায়ীর উধাও হয়ে গেছে। ভুক্তভোগীরা বলছে বেশিরভাগই হচ্ছে স্বর্ণ বন্ধকী রাখার বিপরীতে হাতিয়ে নেওয়া অর্থ।

জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন স্বর্ণ ব্যবসায়ী অনন্যা জুয়েলার্সের মালিক নিখিল চন্দ্র কর্মকার উপজেলা সদরের সুনামধন্য স্বর্ণ ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিতি অর্জন করেছেন দীর্ঘদিন ব্যবসার মাধ্যমে। গত এক সপ্তাহ পূর্বে ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধ করে হটাৎ গা ঢাকা দেয় নিখিল কর্মকার।

এতে তার কাছে থাকা ফরিদগঞ্জের মানুষের প্রায় দুই কোটি টাকার স্বর্ণএবং আনুমানিক ২কোটি টাকা নগদ অর্থ রয়েছে। জানা গেছে, যদিও ফরিদগঞ্জের স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের মধ্যে দু একজনের ডিলিং লাইসেন্স রয়েছে।আর বেশিরভাগ স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা এই একটা করছে অবৈধভাবে। এই পন্থা অবলম্বন করে ওদের কাছ থেকে নিখিল কর্মকার হাতিয়ে নিয়েছে প্রায় ৪ কোটি টাকা ।

ক্রেতা আমির হোসেন নয়ন জানান, আমি ৪.৩ স্বর্ণ বন্ধক রেখেছি ৮হাজার টাকা সে অন্য দোকানে সেটা দশ হাজার টাকা লাগিয়ে টাকা নিয়ে চলে গেছে। এরকম হাজারো গ্রাহকের বন্ধকী স্বর্ণ দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

সাধারণ ব্যবসায়ীরা বলছেন, কিছু ব্যবসায়ী জনসাধারণের নগদ অর্থ নিয়ে গা ডাকা দিয়েছে আরো কিছু ব্যবসায়ী তার পরিকল্পনা করছে তাদের বিরুদ্ধে সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য অনুরোধ জানান।

ফরিদগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি ফখরুল ইসলাম ফারুক বলেন, কিছু স্বর্ণ বিভিন্ন দোকানে বন্ধক রেখে গেছে নিখিল কর্মকার। আমরা চেষ্টা করছি কিছু গ্রাহককে স্বর্ণ বন্ধক থেকে উদ্ধার করে দেওয়ায় জন্য।

তিনি আরো বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে আর ৭ জন ব্যবসায়ী ফরিদগঞ্জের মানুষের মোটা অংকের টাকা নিয়ে অন্যত্র পালিয়েছে। এরা হলেন নিখিল কর্মকার, ফরিদগঞ্জের বাজারের আড়ৎ ব্যবসায়ী লক্ষ্মী নারায়ণের ছেলে দু বছর পূর্বে স্বপন চন্দ্র দাস মাছ বাজার থেকে আনুমানিক ৮০লক্ষ টাকা নিয়ে পালিয়েছে।

Hakim Mizanur Rahman New ad

ভূবল চন্দ্র দাসের ছেলে সুমন চন্দ্র দাস ৫ বছর অর্ধ কোটি টাকা নিয়ে পালিয়েছে। ঔষধ কোম্পানিতে কর্মরত সমিরন চন্দ্র দাস ৯৫ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়েছে ২০১৫ সালে। এছাড়া ও ফরিদগঞ্জ থেকে উধাও হয়ে গেছে ঔষধ ব্যবসায়ি দুলাল চন্দ্র দাস স্বপন মজুমদার, বিকাশ রঞ্জন চক্রবর্তী।

থানা পুলিশ বলছে, এ পর্যন্ত যত ব্যক্তি উধাও হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে এখনো পর্যন্ত কোনও ভুক্তভোগী লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে এদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 100 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন