রিপোর্ট 454

মতলব উত্তরে সোহান বেকারী এন্ড কনফেকশনারিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরী হচ্ছে নিম্ন মানের খাবার

মতলব উত্তর প্রতিনিধি:
সকালে ঘুম থেকে উঠেই বেকারীর পাউরুটি, মজাদার বিভিন্ন বিস্কুট অথবা সুস্বাদু কেক দিয়ে হরহামেশাই নাস্তা করছে সাধারণ মানুষ এবং কোমলমতি শিশুদের বিভিন্নরকমের লোভনীয় রসালো খাবার প্রতিনিয়ত কিনে নিচ্ছেন। বেকারীর তৈরী এসব খাবার কি ভাবে তৈরী করা হচ্ছে তা দেখে অবিশ্বাস্য মনে হবে। বেকারি খাবারের নামে এসব কি খাওয়ানো হচ্ছে খাদ্য নাকি রোগ জীবাণু।

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মিয়ার বাজার (কালির বাজার) নামক স্থানে মো. মিজানুর রহমানের সোহান বেকারী এন্ড কনফেকশনারি নামে তেমনই এক বেকারীর সন্ধান পাওয়া গেছে। নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে ভোক্তা অধিকার আইনের তোয়াক্কা না করে তৈরী হচ্ছে পাউরুটি, কেক, বিভিন্ন রকমের বিস্কুট ও বাচ্চাদের জন্য লোভনীয় রসালো খাবার। তেলের পরির্বতে বার বার ব্যবহার করা হচ্ছে খুবই নিম্নমানের একই পামওয়েল এবং পামওয়েলের সাথে ময়দা মিশিয়ে তৈরি করা হচ্ছে মাখন। চিনির সাথে সেকোরিন মিশিয়ে তৈরী করা হচ্ছে রসালো পিঠা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ এই বেকারির খাবার খেয়ে অনেক মানুষ আমাশয় সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বিভিন্ন খাদ্যের সাথে অসংখ্য কিট পতঙ্গও পরে থাকতে দেখা যায়। এ বেকারীতে শিশু আইন না মেনে শিশুদেরকে দিয়ে তৈরী করা হচ্ছে বিভিন্ন বেকারি খাবার। কোন খাদ্যের প্যাকেটে মেয়াদোত্তীর্ন তারিখ ও বিএসটিআই অনুমোদিত স্টিকার এবং খাদ্য উৎপাদন ও বিতরণের কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেনি এই বেকারি মালিক মো. মিজানুর রহমান।

এলাকাবাসি বলেন- এমন অস্বাস্থ্যকর নোংরা বেকারীর বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

 83 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন