বৃষ্টি

হাইমচরে হঠাৎ বৃষ্টিতে লোডশেডিং, কনকনে ঠান্ডায় বিপর্যস্ত জনজীবন

হাইমচর প্রতিনিধিঃ

হাইমচরে হঠাৎ বৃষ্টি ও দমকা হাওয়া লোডশেডিং আর মাঘের কনকনে ঠান্ডায় কাহিল হাইমচরের জনজীবন। ব্যহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা।

শুক্রবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বাদ জুমা থেকে টানা বৃষ্টিতে সড়ক ও মাঠে-ময়দানে বৃষ্টি জমে পড়েছে। থেমে থেমে মেঘের গর্জনে বর্ষার আমেজ সৃষ্টি করেছে। দমকা হাওয়ায় গাছ উপড়ে পড়েছে অনেক জায়গায়। দুপুর থেকে বিদ্যুত নেই হাইমচরে।

এদিকে বৃষ্টির কারণে কর্মজীবী মানুষ কাজে বের হতে পারছেনা। বিশেষ করে দিনমজুর, মিস্ত্রি ও নির্মাণ শ্রমিকরা ঘর থেকে বের হতে পারেনি। রাস্তাঘাটে যানবাহন ও লোক চলাচলও ছিল কম। বিপাকে পড়েছে দৈনিক আয়ের উপর নির্ভরশীল রিকশা ও ভ্যানচালকসহ নিম্ন আয়ের মানুষেরা।

বিদ্যুৎ অফিস সূত্রে জানাজায়, বৃষ্টির সাথে দমকা হাওয়া হওয়ায় বিদ্যুতের মেইন লাইনের তার ছিড়ে যাওয়ায় ফরিদগঞ্জ, বালিয়া ও হাইমচরের বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন রয়েছে। লাইন সচল করার লক্ষে কাজ চলছে বলে জানাগেছে।

উপজেলার গন্ডামারা গ্রামের রিক্সাচালক মোঃ আনিছুর রহমান জানালেন, ঝড় আর বাতাস, তার উপর কনকনে ঠান্ডা। রাস্তায় মানুষজন নেই, সড়কে নেই রিকশা কিংবা ইজিবাইক। মানুষ বাঁচবে কেমনে।

কালাচকিদার মোড়ের রফিকুল ইসলাম জানান, এতদিন শীত উপেক্ষা করে কাজে বের হয়েছিলাম। আজ বৃষ্টির কারণে যেতে পারিনি। সাথে সামান্য বৃষ্টি হওয়ার সাথে সাথে হাইমচর থেকে বিদ্যুৎ যেন উদাও হয়ে গেল।

এদিকে বৃষ্টির কারণে আলু খেতে ছত্রাকের আক্রমণের শঙ্কা দেখা গিয়েছে। ইতোমধ্যে অনেক এলাকায় আলুতে লেট ব্লাইট বা ছত্রাকের আক্রমণ দেখা যায়।

চরভাঙ্গা গ্রামের কৃষক আব্দুল মজিদ জানান, গত কয়েকদিনের টানা শৈত্যপ্রবাহের কারণে তার আলু খেতে মড়ক দেখা দিয়েছে। বৃষ্টির কারণে মড়ক আরও বাড়ে কি-না এই নিয়ে চিন্তিত তিনি।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ দেলওয়ার হোসেন জানান, বৃষ্টি ও স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়া আলুতে ব্লাইটের আক্রমণের জন্য উপযোগী পরিবেশ।

 26 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন