chandpurreport 637

মতলব উত্তরে মায়ের সম্পত্তি লিখে না দেয়ায় ভাইয়ের ঘর নির্মাণে বাঁধা : প্রাণনাশের হুমকি

সফিকুল ইসলাম রানা
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় মায়ের সম্পত্তি এক ছেলের নামে লিখে না দেওয়ায় ওই ছেলে আরেক ছেলের ঘর নির্মাণে বাঁধা প্রদান করছে। এমনকি মারধরের অভিযোগও পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মা সাজেদা বেগম (৫৯) বাদী হয়ে তার ছেলে মামুনুর রশিদ সবুজ (৩২) এর বিরুদ্ধে মতলব উত্তর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার আবুরকান্দি গ্রামের মৃত আবুল খায়ের মোল্লা বহুদিন রোগাক্রান্ত হয়ে গত দেড় বছর আগে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুবরণ করার আগে তার স্ত্রীর নামে ২০ শতাংশ, দুই ছেলে হুমায়ুন কবির ও সুমনের নামে ১৫ শতাংশ করে ৩০ শতাংশ ভূমি কবলা করে লিখে দিয়ে গেছেন। আবুল খায়ের মৃত্যুবরণ করার পর গত এক বছর আগে মৌখিকভাবে এক মেয়ে ও তিন ছেলের নামে সম্পত্তি ভাগ ভাটোয়ারা হলে আঃ কাইয়ুম ঝিনাইয়া সড়কের পাশে তাদের জমিতে বিল্ডিং নির্মাণ কাজ শুরু করেন।

কিন্তু হঠাৎ করে গত কয়েকদিন যাবৎ ওই বিল্ডিং নির্মাণে বাঁধা প্রদান করছেন তারই ছোট ভাই মামুনুর রশিদ সবুজ। গত ২২ মে বিল্ডিংয়ের কাজ করার সময় মিস্ত্রিদের জিনিসপত্র সবুজ ও তার স্ত্রী এসে লুটপাট করে নিয়ে যায়। এবং কাজ করলে মা সাজেদা বেগম ও ছেলে আঃ কাইয়ুমকে প্রাণে মেরে ফেলবে বলেও হুমকি দেয়।

বাদী সাজেদা বেগম বলেন, আমার স্বামী জীবিত থাকতে আমার নামে ২০ শতাংশ জায়গা কবলা করে দিয়ে গেছেন। এখন ওই সম্পত্তি ছোট ছেলে সবুজ তার নামে লিখে নিতে হুমকি ধামকি দেয়। আমি রাজি না হওয়ায় আমার বড় ছেলের বিল্ডিং নির্মাণের কাজে বাঁধা দিচ্ছে। তাকে কিছু বললে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। সে সময় মাদক খায়। আমাকে বিভিন্ন সময় মারধর করে। কোন উপায়ন্তর না পেয়ে থানায় অভিযোগ করেছি। আমি আইনের কাছে সুষ্ঠু বিচার চাই।

আঃ কাইয়ুম বলেন, আমাদের বাড়িতে অনেক জায়গা আছে। আমার বাবা মৃত্যুবরণ করার পর শালিশ বৈঠকের মাধ্যমে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে মৌখিকভাবে ভাগ ভাটোয়ারা হয়েছে। আমার জায়গায় আমি বিল্ডিং নির্মাণ করব কিন্তু সবুজ তাতে অমানবিকভাবে বাঁধা দিচ্ছে। সে মাদকসেবী হওয়ায় উশৃঙ্খল আচরণ করে। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আসে আমাদের মারার জন্য। তাই এলাকার মানুষ ভয়ে কিছু বলে না। আমার বাড়ির কাজ শেষ করতে না পারায় আমি এখন অন্য মানুষের ঘরে স্ত্রী সন্ত্রান নিয়ে থাকি।

এদিকে বিবাদী মামুনুর রশিদ সবুজের সাথে কথা বলার জন্য তার বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি।

 92 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন