সারাদেশে দুইদিনে তিন লাখ লিটার তেল জব্দ

১০ মে, ২০২২ ৮:৩১ অপরাহ্ণ
সারাদেশে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও পুলিশের অভিযানে দুই লক্ষ নব্বই হাজার নয়শত পঁচাত্তর (২৯০৯৭৫) লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়েছে। গত সোমবার ও আজ মঙ্গলবার (১০ মে) দিনব্যাপী অভিযান চালিয়ে এসব সয়াবিন তেল জব্দ করার কথা গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার।

গত সোমবার (৯ মে) ভোক্তা অধিদপ্তর ও পুলিশের অভিযানে ঢাকায় ৩১৭৩০ লিটার, চট্টগ্রামে ১৬০৫৩ লিটার, কুমিল্লায় ৬০০০ লিটার, দিনাজপুরে ১০০০ লিটার, নাটোরে ৩৬০০ লিটার, রংপুরে ১০০০০ লিটার, রাজশাহীতে ১০০০ লিটার তেল জব্দ করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (১০ মে) ভোক্তা অধিদপ্তর ও পুলিশের অভিযানে যশোরে ১০১৮ লিটার, নড়াইরে ৬০০ লিটার, সিলেটে ৫০০০ লিটার, রংপুরে ১৩০০ লিটার, পাবনায় ১২৪৪ লিটার, সিরাজগঞ্জে ৪৫০০ লিটার, রাজশাহীতে ১৩২ লিটার, রাঙ্গামাটিতে ৩২০ লিটার, বরিশালে ৭০০ লিটার ঝালকাঠিতে ১৫০০০ লিটার, ৪৫ হাজার লিটার, চাঁদপুরে ৭৫০০ লিটার, মৌলভীবাজারে ১০০ লিটার মুন্সিগঞ্জে ৭০ লিটার গেপালগঞ্জে ৩৫০ লিটার, মানিকগঞ্জে ২০০ লিটার, আজ বিকেল রাজশাহীর চার গুদামে ৯২ হাজার লিটার, পাবনার মুদি দোকানে ১৮ হাজার লিটার, গাজীপুরে ২০৫৮ লিটার, কুষ্টিয়ায় ৪০ হাজার লিটার তেল জব্দ করা হয়।

সারাদেশ ভোক্তা অধিকারের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান, ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার।

উল্লেখ্য, একবছর ধরেই দেশে ভোজ্যতেলের বাজারে অস্থিরতা চলছে। করোনার কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের কাঁচামালের দাম দফায় দফায় বাড়ার কারণে দেশীয় বাজারে এ পণ্যটির দাম হু হু করে বেড়েছে।

প্রতিবারই সরকারি হস্তক্ষেপে দাম নির্ধারণ করা হলেও কোনোবারই প্রতিফলন ঘটেনি বাজারে। সর্বশেষ ঈদের পরের দিন গত ৫ মে বোতলজাত প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১৯৮ টাকা ও খোলা সয়াবিন তেল ১৮০ টাকা নির্ধারণের ঘোষণা দেয়া হয়। এরপর থেকে সয়াবিন তেলের বাজারে সংকট দেখা যায়।

Hakim Mizanur Rahman New ad

মার্চেও ভোজ্যতেলের বাজারে যখন অস্থিরতা দেখা দেয়, তখন মিল মালিকদের দাবির মুখে ভোজ্যতেলের উৎপাদন ও সরবরাহ পর্যায়ে সব মূল্য সংযোজন কর প্রত্যাহার এবং আমদানি পর্যায়ে ভ্যাট কমানো হয়। বিশাল কর ছাড়ের পরও এর সুফল পায়নি ভোক্তারা।

 82 সর্বমোট পড়েছেন,  2 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন