পশু

চাঁদপুরে এসআর ডেইরি ফার্মে প্রস্তুত দেশি-বিদেশী বিভিন্ন প্রজাতির কুরবানির পশু

সাদ্দাম হোসেন :

পবিত্র ঈদুল আযহাকে ঘিরে প্রতি বছরের ন্যায় এবারো বিভিন্ন প্রজাতির কোরবানির পশু প্রস্তুত করেছে চাঁদপুরের এসআর ডেইরি ফার্ম। প্রতিষ্ঠানটিতে এবছর দেশী-বিদেশী বিভিন্ন জাতের গরুর পাশাপাশি মহিষ, ছাগল, খাসি, ভেড়া প্রস্তুত করা হয়েছে। ইতোমধ্যে খামার পরিদর্শনের মাধ্যমে পছন্দের গরু অগ্রিম বুকিং দিচ্ছেন ক্রেতারা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চাঁদপুর শহরের দক্ষিণ গুণরাজদি মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম সড়কের পাশে মো. আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারির ব্যক্তি মালিকানায় গড়ে উঠেছে এসআর ডেইরি ফার্ম। এলাকায় কর্মসংস্থানের পাশাপাশি গবাদিপশু সরবরাহ এবং প্রতি বছর কোরবানীতে অবদান রেখে আসছে এই প্রতিষ্ঠানটি। জেলা প্রাণিসম্পদ মেলায় অংশগ্রহণ করে বেশ ক’বার জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করা এই প্রতিষ্ঠানে বছরের বারো মাসই গবাদি পশু বিক্রি করে থাকে।

এবারের কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে তাদের ব্যাপক প্রস্তুতি লক্ষ্য করা গেছে। বর্তমানর এখানে রয়েছে দেশী-বিদেশী বিভিন্ন জাতের ৫০টি গরুর পাশাপাশি শতাধিক মহিষ, ছাগল, খাসি, ভেড়া। ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৫ লাখ টাকা মুল্যের ছোট, মাঝারি ও বড় সাইজের গরু রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানে। কোরবানীতে এই প্রতিষ্ঠানের গরুর চাহিদা বেড়ে চলছে।

এসআর ডেইরি ফার্মের কর্মচারি সহিদুল ইসলাম বলেন, এই ফার্মে আমরা ৩ জন লোক কাজ করছি।

আমাদের এখানে গবাদিপশুগুলোকে দেশি ঘাস ছাড়াও সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক খাবারর খাওয়ানো হয়। যত্নসহকারে আমরা গবাদিপশু গুলো লালনপালন করি।

অবসরপ্রাপ্ত উপ-সহকারি প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. আব্দুল হাই বলেন, আমি ২০০৯ সাল থেকে এই ফার্মের গবাদিপশু দেখাশোনা করে আসছি। এখানে প্রাকৃতিক খাবার খাইয়ে গবাদিপশু মোটাতাজা করা হয়। এই ফার্মের গরুগুলোকে প্রাণঘাতী স্টেরয়েড জাতীয় ঔষধ খাওয়ানো হয় না। যার ফলে গরুগুলো হয় রোগমুক্ত, স্বাস্থ্যবান ও প্রাণবন্ত।

Hakim Mizanur Rahman New ad

এসআর ডেইরি ফার্মের স্বত্বাধিকারী মো. আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারির বলেন, ২০০৯ সালে আমি এই ডেইরি ফার্মটি গড়ে তুলি। বছরের ১২ মাস এখানে গরু-ছিগল বিক্রি করা হয়। চাঁদপুরের অনেক কসাই আমার কাছ থেকে গরু-ছাগল নিয়ে থাকে। এছাড়া বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্যেও আমরা গরু-ছাগল বিক্রি করে থাকি। এবারের কোরবানীর জন্য আমরা শতাধিক গরু- মহিষ, ছাগল, ভেড়া প্রস্তুত করেছি। ইতোমধ্যে খামার পরিদর্শনের মাধ্যমে পছন্দের গরু অগ্রিম বুকিং দিচ্ছেন ক্রেতারা।

piles fistula

তিনি আরো জানান, শুধু ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে নয় সেবার মানসিকতায় ফার্ম থেকে কোরবানীর জন্য পশু বাজারজাত করছি। সর্বোপরি মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকির বিষয়টি আমরা সর্বোচ্চ গুরত্ব দিই। এ কারনে আমাদের প্রতিষ্ঠানের কোরবানিসহ বছরের বারো মাস গবাদিপশুর চাহিদা বেড়ে চলছে। যারা সুলবমূলে কোরবানিকে পশু কিনতে আগ্রহী তারা আমাদের ফার্মটি ঘুরে দেখতে পারেন।

 102 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন